সেনাবাহিনী বিষয়ে আমার বক্তব্য খন্ডিতভাবে প্রচার করে বিভ্রান্তির সুযোগ তৈরি করা হচ্ছে

সম্প্রতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক নির্বাচন পরিচালনা কমিটি নামক একটি ফেইসবুক পেইজ থেকে ২০১৩ সালে ডয়েচে ওয়েলেকে দেয়া আমার একটি সাক্ষাৎকার থেকে খন্ডিতভাবে এক টুকরো অংশ উদ্ধৄত করে একটি ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে সেখানে বলেছে:

“দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী ও জনগণকে মুখোমুখি করতে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল শহিদুল আলম। সেনাবাহিনীকে বিতর্কিত করতে আন্তর্জাতিক একটি মিডিয়াকে বেছে নিয়েছিলেন তিনি।”

২১ বছর আগে অপহৃত হিল উইমেন্স ফেডারেশেনের নেত্রী কল্পনা চাকমাকে নিয়ে আমি ২০১৩ সালে যেই প্রদশর্নী করেছিলাম তার উপর দেয়া ওই সাক্ষাৎকারের প্রায় পুরোটুকু ফেলে দিয়ে মাঝখান থেকে  খন্ডিতভাবে ছোট এক টুকরো অংশ কেটে নিয়ে তারা যেভাবে প্রচার করছে তার থেকে বিভ্রান্তির সুযোগ তৈরি হচ্ছে। উল্লেখ্য, কল্পনা চাকমার অপহরণের সাথে সেনা সদস্যর সংশ্লিষ্টতার যে অভিযোগ, যার উল্লেখ আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় নেতা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীরও ২০০৯ সালের একটি টিভি টক শোতে করেছিলেন, সেই অভিযোগের কোন বিচার এত বছর ধরে হয়নি। পাশাপাশি পার্বত্য অঞ্চলে যে জাতিগত নিপীড়ন চলমান তারও কোন সুরাহা দশকের পর দশক ধরে হয়নি। এরই প্রেক্ষাপটে বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সরকার ও সামরিক বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে সামগ্রিকতার আলোকে কিছু আলোচনা আমি ঐ সাক্ষাতকারে করি। পাশাপাশি আমার যে প্রদর্শনী কল্পনা চাকমার অপহরণ নিয়ে হয়েছিল সেই প্রদর্শনীরও নানা দিক আমি সেখানে তুলে ধরি। ফলে সেখানে আমাকে কল্পনা চাকমার অপহরণের উপর বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করার পর এক পর্যায়ে যখন প্রশ্ন করা হয় “তার মানে এটা কি বলা যায় যে কোন সরকারই আসলে সামরিক বাহিনীর বিষয়ে বিশেষ কোন কিছু, কোন উদ্যোগ গ্রহণে আগ্রহী নয়?” তখন এর উত্তরে আমি যা বলি তা ছিল নিম্নরূপ:

“আমাদের সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন আছে কিনা সেটাই আমি প্রথমে প্রশ্ন করি। তেতাল্লিশ বছর ধরে আমরা যে সামরিক বাহিনীকে লালন করছি তারা কিন্তু একবারও দেশ রক্ষার কাজে কোনভাবে নিয়োজিত হয়নি। সেটা ভালো। আমাদের শান্তি আছে সেটা ভাল। তবে বিশাল অঙ্ক কিন্তু এদের উপর ব্যয় করা হচ্ছে যেটা শিক্ষায় যেতে পারত, স্বাস্থ্যে যেতে পারত, অন্যান্য ধরনের উন্নয়নে যেতে পারত, সেটা হয়নি। এমনকি যে জায়গায় তাদের থেকে আমরা কিছু আশা করতে পারি আমাদের এই বর্ডারে যে বাঙালীদের পাখির মতো গুলি করা হচ্ছে, বিএসএফরা গুলি করছে সেখানে প্রতিবাদ করা, সেখানে তাদের অন্তত এই পরিস্থিতিতে বাঙালীদের, বাংলাদেশীদের বাঁচানো সেই কাজেও তারা কোন কিছু করেনি। তাদের একমাত্র কাজ শোষণ করা। এই শোষণ তো পাকিস্তানীরা আমাদের করেছে। আমাদের নিজেদের মিলিটারী আমাদের শোষণ করবে এটা আমরা হজম করব এটা হবে কেন? কিন্তু যে কথা আপনি বললেন, যখন যে সরকারই এসেছে এদেরকে তুষ্ট করাই ছিল তাদের প্রধান কাজ। এবং এটাও ভাবতে হবে যে আমাদের দেশের জাতির পিতাকে যারা হত্যা করেছে, জেনারেল জিয়াকে যারা হত্যা করেছে, আমাদের নেতাদের জেলে যারা হত্যা করেছে তারা কিন্তু এই দলেরই মানুষ।”

কিন্তু আমার উত্তর থেকে বিএসএফ এর সীমান্ত হত্যা ঠেকাতে না পারা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় নেতাদের হত্যা বিষয়ক  খুবই গুরুত্বপূর্ণ দুটি অংশ সম্পূর্ণরূপে বাদ দিয়ে  তারা যেভাবে খন্ডিত আকারে আমার বক্তব্যটি প্রচার করছে তা নিম্নরূপ:

“আমাদের সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন আছে কিনা সেটাই আমি প্রথমে প্রশ্ন করি। তেতাল্লিশ বছর ধরে আমরা যে সামরিক বাহিনীকে লালন করছি তারা কিন্তু একবারও দেশ রক্ষার কাজে কোনভাবে নিয়োজিত হয়নি। সেটা ভালো। আমাদের শান্তি আছে সেটা ভালো। তবে বিশাল অঙ্ক কিন্তু এদের উপর ব্যয় করা হচ্ছে যেটা শিক্ষায় যেতে পারত, স্বাস্থ্যে যেতে পারত, অন্যান্য ধরনের উন্নয়নে যেতে পারত, সেটা হয়নি। তাদের একমাত্র কাজ শোষণ করা। এই শোষণ তো পাকিস্তানিরা আমাদের করেছে। আমাদের নিজেদের মিলিটারি আমাদের শোষণ করবে এটা আমরা হজম করব এটা হবে কেন?”

এভাবে আমার প্রায় পুরো সাক্ষাতকারটাই বাদ দিয়ে মাঝখান থেকে একটি প্রশ্নকে বেছে নিয়ে তার উত্তরে আমি যা বলেছিলাম তারও গুরুত্বপূর্ণ দুইটি অংশ বাদ দিয়ে যেভাবে খন্ডিতভাবে আমার বক্তব্যকে উপস্থাপন করা হয়েছে তাতে বিভ্রান্তি তৈরি হতে পারে। আমার কাছে এটা বিস্ময়কর যে আওয়ামী লীগের একটি ফেসবুক পেইজ কি করে আমার উত্তর থেকে জাতির পিতা হত্যাকান্ডের মতো এতো গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশকে ছেঁটে ফেলল! আমি মনে করি সামগ্রিকতার আলোকে সামরিক বাহিনীসহ রাষ্ট্রের যেকোন প্রতিষ্ঠান নিয়েই গঠনমূলক সমালোচনা করা প্রতিটি নাগরিকের দায়িত্ব এবং জাতীয় স্বার্থেই সামরিক বাহিনী সহ প্রতিটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের উচিত এসব গঠনমূলক সমালোচনাকে নির্মোহভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করা, আমলে নেয়া। সেই রাস্তা বন্ধ করাই বরং সামরিক বাহিনীসহ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে জনগণের মুখোমুখি করার ষড়যন্ত্রের সামিল।

আমার সাক্ষাতকারের অডিও লিংক পাবেন এখানে। আগ্রহীরা শুনে মিলিয়ে দেখতে পারেন।

শহিদুল আলম

 

 

Deutsche Welle interviews Shahidul Alam on “Searching for Kalpana Chakma” show (Bangla)

Military’s sole role has been repression

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একমাত্র কাজ ‘শোষণ করা’

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রয়োজনীয়তা এবং তাদের কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দৃকের প্রতিষ্ঠাতা ড. শহীদুল আলম৷ গত সপ্তাহে জার্মানি সফরকালে ডয়চে ভেলেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর একমাত্র কাজ ‘শোষণ করা’৷

ডয়চে ভেলের গ্লোবাল মিডিয়া ফোরাম সম্মেলনে অংশ নিতে গত ১৭ থেকে ১৯ জুন বন শহরে অবস্থান করেন ড. শহীদুল আলম৷ এসময় ডয়চে ভেলেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি কল্পনা চাকমা অপহরণ বিষয়ে সর্বশেষ অনুসন্ধানের কথা জানান৷ সম্প্রতি শহীদুল এবং সায়দিয়া গুলরুখ এই চাকমা তরুণীর খোঁজ করেছেন৷ এই সংক্রান্ত একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনীও অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকার দৃক গ্যালারিতে৷

কল্পনা চাকমা অপহরণ

বাংলাদেশে অন্যতম আলোচিত এবং চাঞ্চল্যকর ঘটনা কল্পনা চাকমা অপহরণ৷ ১৯৯৬ সালের ১১ জুন মধ্যরাতে রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে নিজ বাড়ি থেকে অপহৃত হন কল্পনা৷ এরপর থেকে আর তাঁর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি৷

সাক্ষাৎকারটি শুনতে ক্লিক করুন এখানে

কল্পনার অপহরণের বিষয়ে শহীদুল তাঁর গবেষণার ভিত্তিতে বলেন, ‘‘যে ব্যক্তি অপহরণ করেছে তাকে চিহ্নিত করা সত্ত্বেও এই ১৭ বছরে পুলিশ কিন্তু তাকে একবারও জিজ্ঞাসাবাদ করেনি৷ আমরা এতবছর পর যে তিনজন ব্যক্তি (কল্পনা চাকমা অপহরণে) অভিযুক্ত তাদের মধ্যে দু’জনকে খুঁজে পেয়েছি৷ তবে ল্যাফটেনেন্ট ফেরদৌসের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি৷”

শহীদুল জানান, কল্পনা চাকমা অপহরণের জন্য প্রধান অভিযুক্ত লেফটেনেন্ট ফেরদৌস৷ অথচ তাঁর সম্পর্কে কোন তথ্য সামরিক বাহিনীর কাছে নেই বা তারা তা প্রকাশ করতে চায় না৷ শহীদুল বলেন, ‘‘একটা স্বাধীন দেশে এরকম একটি ঘটনা ঘটে যাবার পরে সাধারণ নাগরিকের জানার যে অধিকার, সেটা থেকে তাঁরা আজও বঞ্চিত হচ্ছে, এটা আমাকে অবাক করে৷”

কল্পনা কি বেঁচে আছেন?

কল্পনা চাকমাকে এখনো অপহৃত হিসেবেই বিবেচনা করছে তাঁর পরিবারের সদস্যরা৷ তাই তাঁকে ফিরে পাওয়ার স্বপ্ন কিছুটা হলেও দেখছেন কেউ কেউ৷ ১৭ বছর আগের এই অপহরণের প্রত্যক্ষ সাক্ষী কল্পনা চাকমার বড় ভাই কালিন্দী কুমার চাকমার সঙ্গে কথা বলে সেটাই মনে হয়েছে শহীদুলের৷ তবে বাস্তবতা তেমন নয়৷ শহীদুল বলেন, ‘‘আমরা যদি ঠান্ডা বাস্তবতার কথা ভাবি, তাহলে আমাদের সকলের কাছেই বিষয়টি পরিষ্কার৷ শুধু যে তাঁকে ১৭ বছর ধরে পাওয়া যায়নি, তা নয়৷ তাঁর শেষ যে আর্তনাদ ‘দাদা মোরে বাঁচা’ ঐ জায়গা থেকে শোনা যায়৷ তারপর কিন্তু গুলির শব্দ শোনা যায়৷ এবং তারপরের দিন গ্রামবাসী সেই জলাশয়ে (যেখান থেকে আর্তনাদ এবং গুলির শব্দ শোনা গেছে) লাশ খুঁজে বেড়ায়, কিন্তু পায়নি৷”

ড. শহীদুল আলম

শহীদুল বলেন, ‘‘সামরিক বাহিনীর স্বভাবও আমাদের জানা আছে, বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রামে, যেখানে এত রকমের হত্যাকাণ্ড হয়েছে, অত্যাচার হয়েছে, যেই নিপীড়নের ইতিহাসের মধ্যে যখন এরকম একজন শক্তিশালী, বিপ্লবী নেতাকে অপহরণ করা হয়, তারপরে তাঁকে পাওয়ার সম্ভাবনা অত্যন্ত কম৷”

‘একমাত্র কাজ শোষণ করা’

কল্পনা চাকমাকে অপহরণের পর পেরিয়ে গেছে ১৭ বছর৷ এই সময়ে একাধিকবার সরকার বদল হয়েছে৷ কিন্তু কোনো সরকারই অপহরণের বিষয়টি সুরাহায় কার্যত কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি৷ তারমানে কি কোনো সরকারই সামরিক বাহিনীর বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী নয়? এ ধরনের প্রশ্নের জবাবে শহীদুল বলেন, ‘‘আমাদের সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন আছে কিনা সেটাই আমি প্রথমে প্রশ্ন করি৷ ৪৩ বছর ধরে আমরা যে সামরিক বাহিনীকে লালন করছি, তারা কিন্তু দেশরক্ষায় একবারও নিয়োজিত হয়নি৷ আমাদের শান্তি আছে, সেটা ভালো৷ তবে বিশাল অংক এদের পেছনে ব্যয় করা হচ্ছে৷ যেটা শিক্ষায় যেতে পারতো, স্বাস্থ্যে যেতে পারতো, অন্যান্য খাতে যেতে পারতো৷”

শহীদুল বলেন, ‘‘এমনকি যে জায়গায় তাদের কাছ থেকে আমরা কিছু আশা করতে পারি, আমাদের সীমান্তে বাঙালিদের যে পাখির মতো গুলি করা হচ্ছে, বিএসএফ-রা গুলি করছে, সেখানে প্রতিবাদ করা, সেখানে অন্তত বাঙালিদের, বাংলাদেশিদের বাঁচানো, সেই কাজেও তারা (সেনাবাহিনী) কোনো কিছু করেনি৷ তাদের একমাত্র কাজ শোষণ করা৷”

উল্লেখ্য, গত ১২ থেকে ২১ জুন ঢাকার দৃক গ্যালারিতে ‘কল্পনা চাকমার খোঁজে’ শীর্ষক প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ এর আগে দৃকে দু’টি প্রদর্শনী সরকার বন্ধ করে দিলেও এবার সেরকম কিছু হয়নি বলে জানান শহীদুল৷

সাক্ষাৎকার: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের আরেক সহযোগী ‘দৃক’

জার্মান আন্তর্জাতিক সম্প্রচার কেন্দ্র ডয়চে ভেলে সম্প্রতি দৃক মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে৷ এই চুক্তির আওতায় দৃকের তৈরি বাংলাদেশভিত্তিক বিভিন্ন ‘মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট’ ব্যবহার করবে ডয়চে ভেলে৷ (24.06.2013)

‘পরপর দু’বার বাংলাদেশ জয়ী হলো, হ্যাট্রিকের আশায় থাকি’

ডয়চে ভেলের সেরা অনলাইন অ্যাক্টিভিজম অ্যাওয়ার্ড ‘দ্য বব্স’-এর বাংলা ভাষার বিচারক ড. শহীদুল আলম৷ অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো এখানেও তাঁর সাফল্য কম নয়৷ তাই হ্যাট্রিকের অপেক্ষা করতেই পারেন শহীদুল৷ (07.05.2013)

Infolady wins BOBs Global Media Form Award

This year’s Global Media Forum Award went to the project Infolady from Bangladesh. At the same time, Chinese author, columnist and blogger Li Chengpeng won the Best Blog award at The Bobs 2013, which awards the best in online activism. Other honors from the international jury for the contest held by Deutsche Welle went to projects from Morocco, Togo and an international website.

The Bobs — Best of Online Activism from DW Akademie on Vimeo. Continue reading “Infolady wins BOBs Global Media Form Award”

‘পরপর দু’বার বাংলাদেশ জয়ী হলো, হ্যাট্রিকের আশায় থাকি’

ডয়চে ভেলের সেরা অনলাইন অ্যাক্টিভিজম অ্যাওয়ার্ড ‘দ্য বব্স’-এর বাংলা ভাষার বিচারক ড. শহীদুল আলম৷ অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো এখানেও তাঁর সাফল্য কম নয়৷ তাই হ্যাট্রিকের অপেক্ষা করতেই পারেন শহীদুল৷

ডয়চে ভেলের সেরা ব্লগ অনুসন্ধান বা সেরা অনলাইন অ্যাক্টিভিজম অ্যাওয়ার্ডের সংক্ষিপ্ত নাম ‘দ্য বব্স’৷ এই প্রতিযোগিতায় বর্তমানে অংশ নেন বিশ্বের ১৪টি ভাষার ব্লগার, অ্যাক্টিভিস্টরা৷ পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক উদ্যোগেরও অংশ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে৷ প্রতিযোগিতাটি পুরোপুরি আন্তর্জাতিক৷ আর এই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলা ভাষার অর্জন বেশ ঈর্ষনীয়৷

২০০৯ সালে দ্য বব্স-এ অংশ নেওয়ার পর ২০১২ সালে বিভিন্ন ভাষার প্রতিযোগীর সঙ্গে লড়াই করে রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স অ্যাওয়ার্ড জয় করেন আবু সুফিয়ান৷ বার্লিনে বিভিন্ন ভাষার জুরি সদস্যদের বৈঠকে ভোটের মাধ্যমে এই সম্মাননা অর্জন করেন তিনি৷ প্রতিযোগিতায় ছয়টি আন্তর্জাতিক মিশ্র বিভাগের একটিতে বাংলা ভাষার জুরি অ্যাওয়ার্ড ‍অর্জন সেটাই প্রথম৷

২০১৩ সালের জুরি অ্যাওয়ার্ড জয় করেছে বাংলাদেশের তথ্যকল্যাণী প্রকল্প

এখানে বলে রাখা ভালো, এই প্রতিযোগিতায় বাংলা ভাষার পাশাপাশি রয়েছে ফার্সি, আরবি, চীনা, রাশিয়ান, জার্মান, ইংরেজির মতো ভাষা৷ এসব ভাষায় বিভিন্ন ধরনের, গঠনের ব্লগ রয়েছে৷ বিষয়বস্তুও বিস্মৃত৷ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে এসব ভাষার গুরুত্বও আলাদা৷ তা সত্ত্বেও দ্বিতীয় সাফল্য অর্জনে খুব একটা সময় নেয়নি বাংলা ভাষা৷ বরং ২০১৩ সালের প্রতিযোগিতায় ‘গ্লোবাল মিডিয়া ফোরাম’ বিভাগে জুরি অ্যাওয়ার্ড জয় করেছে বাংলাদেশের তথ্যকল্যাণী প্রকল্প৷ জার্মানির রাজধানী বার্লিনে গত ৪ঠা মে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে বিচারকদের ভোটে জয়ী হয় এই প্রকল্প৷

বার্লিনের বৈঠকে বাংলা ভাষার বিচারক হিসেবে হাজির ছিলেন প্রখ্যাত আলোকচিত্রী, ব্লগার ড. শহীদুল আলম৷ তথ্যকল্যাণীসহ বাংলা ভাষার অন্যান্য প্রকল্প এবং ব্লগ সম্পর্কে বৈঠকে সবাইকে জানিয়েছেন তিনি৷ তথ্যকল্যাণী প্রকল্পের সাফল্যের পর ডয়চে ভেলেকে শহীদুল বলেন, ‘‘বাংলাদেশের একটি প্রকল্প পুরস্কার পেয়েছে, তাতে তো মজা পাবোই৷ তথ্যকল্যাণীরা তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন সুবিধা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে দিচ্ছেন৷’’

জুরিদের মধ্যে আসিফের ব্লগ নিয়েও বেশ আলোচনা হয়েছে

তবে শুধু তথ্যকল্যাণী নয়, বাংলা ভাষার একজন ব্লগারও আলোড়ন তুলেছিলেন জুরিমণ্ডলীর বৈঠকে৷ গত জানুয়ারি মাসে দুর্বৃত্তের হামলার শিকার এবং বর্তমানে কারাবন্দি ব্লগার আসিফ মহিউদ্দীনের অবস্থা নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে বৈঠকে৷ দ্য বব্স প্রতিযোগিতার ‘রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স’ বিভাগে এ বছর বাংলা ভাষার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আসিফ৷ জুরি বৈঠকের প্রাথমিক পর্বে সবচেয়ে বেশি ভোট নিয়ে এগিয়ে গেলেও চূড়ান্ত ভোটাভুটিতে হেরে যান তিনি৷ এই প্রসঙ্গে শহীদুল বলেন, ‘‘রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স যে বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করে, সেটা ভাবলে আসিফেরই পুরস্কার পাবার কথা৷ তবে এটা ঠিক, গতবছরও আমরা এই বিভাগে পুরস্কার পেয়েছিলাম এবং সামগ্রিকভাবে পরপর দু’বছর একই দেশকে পুরস্কার দেওয়ার ব্যাপারে একটি ইতস্ততা হয়ত ওদের ছিল৷ এছাড়া, এটা না পাওয়ার কোনো কারণ ছিল না৷’’

প্রসঙ্গত, ডয়চে ভেলের প্রতিযোগিতায় এ বছর মনোনয়ন জমা পড়ে চার হাজারের বেশি৷ এ সব মনোনয়নের দিকে নজর দিলে বিভিন্ন দেশের ব্লগের মধ্যে মৌলিক পার্থক্যগুলো বেশ চোখে পড়ে৷ ব্লগের বিষয় বৈচিত্র এবং উপস্থাপনের দিকটি বিবেচনা করলে অন্যান্য ভাষার তুলনায় বাংলা ভাষা এখনো বেশ খানিকটা পিছিয়ে রয়েছে৷ ডয়চে ভেলেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই বিষয়টির দিকেও দৃষ্টি আকর্ষণ করেন শহীদুল৷ তিনি বলেন, ‘‘বিষয়ের দিক থেকে না হলেও প্রযুক্তিগত দিক থেকে আমরা পিছিয়ে আছি৷ আমার মনে হয় ব্লগের ডিজাইনের ক্ষেত্রে, ছবি ব্যবহারের ক্ষেত্রে, ভিডিও ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমরা কিছুটা পিছিয়ে আছি৷ তবে আমি আশা করি, সামনে ব্লগাররা সেগুলোকে গুরুত্ব দেবেন৷’’

উল্লেখ্য, শহীদুলের নেতৃত্বে দ্য বব্স প্রতিযোগিতায় পরপর দু’বার আন্তর্জাতিক বিভাগে জুরি অ্যাওয়ার্ড জয় করেছে বাংলা ভাষা৷ দ্য বব্স-এর ইতিহাসে খুব কম ভাষাই এমন সাফল্য অর্জন করতে পরেছে৷ আগামী বছর আন্তর্জাতিক এই প্রতিযোগিতার দশ বছর পূর্ণ হবে৷ শহীদুলের আশা, আগামীতেও জুরি অ্যাওয়ার্ড অর্জনে সক্ষম হবে বাংলা ভাষা৷ তিনি বলেন, ‘‘পরপর দু’বার বাংলাদেশ জয়ী হলো, (এবার) হ্যাট্রিকের আশায় থাকি৷’’

সাক্ষাৎকার: আরাফাতুল ইসলাম, বার্লিন

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

বাংলাদেশি তথ্যকল্যাণীদের বিশ্বজয়

তথ্যকল্যাণী – প্রত্যন্ত অঞ্চলের সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের বিভিন্ন সেবা প্রদান করেন তাঁরা৷ চলতি বছর ডয়চে ভেলের সেরা অনলাইন অ্যাক্টিভিজম অ্যাওয়ার্ড ‘দ্য বব্স’-এর একটি বিভাগে জুরি অ্যাওয়ার্ড জয় করেছেন তথ্যকল্যাণীরা৷ (07.05.2013)

ডয়চে ভেলের ‘বেস্ট অফ ব্লগস’ প্রতিযোগিতায় গোটা বিশ্বের সেরা ব্লগারদের বেছে নিলেন আন্তর্জাতিক বিচারকমণ্ডলীর ১৫ জন সদস্য৷ বিচারকাজ সম্পন্ন হয় ডয়চে ভেলের বার্লিন অফিসে৷ এ বছর ৪,২০০-রও বেশি প্রস্তাব জমা পড়েছিল৷ (07.05.2013)

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

The Bobs (Best of Blogs): Online voting starts

It’s all international freedom of expression. Internet users around the world have until May 7 to vote on who should win this year’s Users’ Choice prizes in Deutsche Welle’s annual

The Bobs Awards.

An international jury decided on the 364 finalists that are now in the running for the Users’ Choice prizes. Votes for finalists in The Bobs – Best of Online Activism can be cast at www.thebobs.com. Continue reading “The Bobs (Best of Blogs): Online voting starts”

Deutsche Welle on Pathshala

Interview by Arafatul Islam

???? ????

???? ?????? ?????????? ?????? ???????!

????????? ????? ?????? ???? ?????? ?????? ???????? ???? ???? ??? ????? ?????? ?????? ?????? ?????? ???? ???? ????????? ?????? ??????? ??????????? ???????? ?????? ??????? ?????? ???? ????????

???? ??????? ??????? ??????????, ???????? ????????? ??????? ???????? ?????????? ?????? ???? ?????????? ???? ???? ???? ?????????? ?? ??????? ????? ????????? ????? ???? ??? ???????? ???????? ????? ????? ?????????? ? ???? ???????? ?? ????????? ??????? ????? ??????? ???????? ????????? ?????? ?????? ??????? ?????? ???? ?? ???????????
???????? ??????????, ???? ??? ????????????? ?. ?????? ??? ???????? ???????????? ????? ?????????? ???? ????????? ????????????????? ??????? ????? ??????? ???????? ?????? ??? ????, ??(???? ?????????? ??????) ??????????, ?????, ???????????? ???? ??? ???????? ??? ???? ?? ????, ??????????? ????????? ????? ????

???????? ??????????? ?. ?????? ???

???? ??? ???, ?????? ????? ????????????? ???????????, ???? ?????? ????? ?????? ??????? ? ?????? ?????? ???????? ? ???? ????????????, ??????????? ???????? ???? ????????? ?????”
??????????, ????????? ????????? ?????? ????????? ???????? ???? ???? ???? ?????? ????????? ?????? ???????????? ?? ?????? ???? ????????? ???? ??? ??????? ??????????????? ??????????????? ????? ???? ?. ??? ?? ?????? ????, ?????? ???????? ?? ???????? ??????? ???? ?????? ?????? ?????, ????????? ?????? ??? ????? ??? ?????? ???????? ??????? ????? ?????? ???? ?????, ??? ?????? ?????? ????? (?????????) ??????? ??? ??? ?????? ??????????? ???? ?????? ???-??? ??? ???, ??? ????? ??????????? ????? ??? ???????? ???, ??? ???? ??????? ????????”
????????? ????? ?????????????????? ???????? ????? ????? ???????? ?? ???????????? ???????????? ?????????? ????? ??? ???????’, ???? ???????? ?????????? ?? ???? ????????????’-?? ??????? ??????????? ????????????? ????? ????? ????? ??????
???????? ????????? ???? ????????? ??????? ?????????? ?????? ????? ?????? ?????? ????? ?. ??? ??? ???? ??? ?????? ????????? ???? ????, ?????????????? ??????? ????? ????? ?????? ?????????????? ???? ???????? ?????? ??? ???????? ???????? ??????? ?. ??? ?? ?????? ????, ?????????? ????????? ???? ???? ????? ?????? ???? ???? ?????? ??????? ??????? ?????, ???? ?????????????? ????? ??????????? ??????????????? ????????? ????? ??????????? ????? ?????? ??????? ????? ??????? ??? ??? ????? ?????? ???? ????????? ???? ????? ????? ??? ??? ???? ???? ?????”

???????????? ????? ????? ???? ?????

 
???????? ????? ???????? ???????? ???? ??? ???? ????? ????? ?. ??? ????, ?????? ??? ??????? ???? ???? ???????????? ?????????????? ?????? ????? ???? ??? ??????? ???????? ????? ??????, ??? ?????????? ????? ??? ????? ???? ???????? ???? ??????? ???? ?????? ?????? ??????? ?????? ?????????? ?????? ??? ??????? ???? ????????? ????? ?????? ?????? ????, ?????? ?????? ??????? ??? ????? ?????? ?????? ???? ???? ?????? ????”
?????? ????????, ?????? ?????? ???, ???? ????? ??????? ?? ???? ???? ?????, ???? ?????? ???? ?? ????? ??? ???? ????? ???? ???? ??? ???? ???? ????, ?????? ?????? ??????? ????? ??? ??’?????, ??? ????? ?????????????? ???? ??????? ??????? ???????? ???? ???? ??, ??? ?????? ???????? ???? ?????”
?????? ??? ??? ????, ?????????????? ?????? ?????????? ????????? ??????? ?????? ???? ?????????’? ?????? ???? ???? ???? ???? ??????? ?????
?????????: ???????? ?????
????????: ?????? ?????

DW on Drik's 23rd anniversary

Original interview on Deutsche Welle website

???? ????

???????? ????????? ??????? ?????? ???

????????? ??????? ??????? ???????? ???? ??? ?? ????? ??????????? ??????????? ???? ???? ???? ????? ? ?????????? ?????? ???? ??? ???? ????????? ?????????? ?????? ??? ???? ??? ?? ???????????? ??? ??????? ???? ??????? ?????

???? ????? ??????????? ??? ?????? ???? ????? ???, ??? ?? ???????????? ???? ????? ??? ???? ??? ???? ??????????. ?????? ???? ?? ???????? ???? ????, ???????? ????? ???? ??? ???? ????? ??? ?????, ????? ???? ??????? ???????? ???? ???????? ??? ?????, ??????????????? ?????? ????? ???????????? ???? ???? ?????, ???????, ??????? – ?????? ?????? ????? ?????????? ?????? ??? ?????? ????? ???? ???, ???? ??? ??, ??????????? ??????? ??????? ??????????, ???? ?????? ???? ??? ??? ???? ????? ???, ???? ?????? ????? ??????? ????? ??? ?????? ???? ??? ????? ???????? ?????? ?? (????????)????????? ?????????? ???????”

???? ????? ? ?????????? ?????? ???? ??? ???

?????????? ????????? ???? ?? ???? ??????? ?????? ???? ?????? ????? ??? ???? ???? ?. ???? ???? ????? ???? ?????? ??? ???? ????, ?????? ???? ?????? ????? ????? ???? ???, ?????? ????? ??????, ????????, ???????? ? ????? ????? ???? ????, ???? ?????????? ??? ?????, ??? ???? ???? ??? ??? ??? ????? ???? ???? ?????? ???? ??? ?????”
??????????, ??????? ?????? ????????? ?????????????? ?????, ??? ?????? ?? ????????? ??? ???? ???????? ??? ??????????? ?????? ????????? ????????? ?????? ?? ????? ??????? ?????? ??? ?????????? ????? ???????? ??????? ??? ??? ????? ??? ????? ???? ?????? ??? ????? ????? ??????? ??????? ??? ???? ???? ????? ???? ????????? ????????? ??????????? ?? ?????? ???? ????, ???????? ??? ????? ???? ??? ???? ???? ?????????? ????????? ??????????????? ???? ?????? ??????? ?????? ?????? ?????? ??? ??? ??? ???? ???? ?????? ??? ???? ??????? ??? ????? ???? ???? ???? ??? ????????????? ?? ?? ?????, ?????? ???? ?????? ?????? ????? ?????? ????????? ?? ????????, ?????? ?????? ?????? ?????? ??????? ???? ?????”

???????????? ????? ????? ???? ?????

?? ??? ??? ???? ??? ????? ????????? ??? ???? ???????? ????? ??? ???? ????? ????? ?????? ???????, ???????, ??????? ?????????, ????????? ??????? ??????? ?? ???????? ?. ??? ????, ???????? ??? ???? ???????? ???????? ??????? ???? ????????? ?-??? ???? ???? ???? ????????????? ????-????????????? ????? ????? ???? ??? ?? ??????? ?????????? ??? ??? ???, ???? ?????? ???? ??? ????-???? ????? ????? ???? ??????”
???? ????, ??(????????? ??????????) ????? ????? ???? ??? ???? ??????? ???????? ????? ?????? ??? ????? ???? ????? ??????????? ????????? ?????? ???? ????? ????????? ?????? ??????????????????? ? ?????? ???????????? ?????? ???? ??? ???? ?????? ????? ?????? ???????? ???? ????? ??’??? ????? ???? ??? ??????? ????? ???????? ??? ??? ??? ???????? ???? ????? ????????? ???? ?????? ????????? ????? ?????? ??? ???? ??????? ????? ???????? ?????? ?????”
?????????: ???????? ?????
????????: ?????? ?????

Job Offer in Deutsche Welle, Germany

Deutsche Welle is looking for a senior journalist primarily for two years to lead the Bengali Department situated in Bonn , Germany .
Qualification:
University degree on any subject
Some years of experience of working in Radio, TV and Online Media
Ready to live and work in Bonn , Germany
Knowledge on politics, economics, history and culture of Bangladesh , India , Germany and Europe
Good command over German and English language
Apply with a cover letter mentioning the Job Announcement Number 040/12, CV and a
Photo within 08.08.2012 to Ms Gabriele Hein, Head of the Human Resource Department of Deutsche Welle, Bonn .
Send the application to this email

Abu Sufian collects his award at Global Media Forum in Bonn

Bangladeshi blogger Abu Sufian (front row in grey suit) and other bloggers after they received their awards at the BOBs (Best of Blogs) at the Global Media Forum in Bonn. Germany. 26th June 2012.

BOBs 2012: DW’s favorite blogs

As part of this year?s Deutsche Welle Global Media Forum, the 2012 winners of the blog awards “The BOBs” picked up their prizes. The main prize winner came from Iran.
The Iranian jury member (front right) and other members of the audience at the World Conference Centre in Bonn. Germany. 26th June 2012. Shahidul Alam/Drik/Majority World

For the eighth time, DW presented its blog awards selected by an international jury from more than 3,000 suggestions. Bangladeshi Blogger Abu Sufian won the special category of Reporters Without Borders.
 
 

The Borders of the Global Village

 

THE BORDERS OF THE GLOBAL VILLAGE

Guerilla?Internet: Using the Net to fight its own dominance
The?Internet?can be a subversive tool. It remains the only medium which gives scope – relatively inexpensively, and without the support of the gatekeepers ? for a lone voice to be heard. It is this unique characteristic that we have to nurture. The bigger players have the money, the clout, the physical strength and the social control to bludgeon their way through, but they do not have the flexibility, the ability to pop up and disappear at will, the speed of action or the elasticity to slip through the holes, that the well trained individual has. Given the important proviso of access, the Net is fast, cheap, and difficult to stop. It is the Net that we must use, to fight its own dominance.
Shahidul Alam is Jury-member of THE BOBs Deutsche Welle Blog Awards and speaks on the panel presented in cooperation with Deutsche Welle.

Author and DW journalist Cyrus Farivar offers food for thought in his book, ?The Internet of Elsewhere.? He writes, ?When the Internet arrives, it bumps up against various preexisting political, economic, social and cultural histories and contexts ? and often what comes out are rather surprising results.? That?s the backdrop for a discussion by the expert and BOBs juror Shahidul Alam, who explores complex intersections between the Internet and society by looking at the example of Bangladesh.
Keynote address at 6:00 pm at the re-publica, Berlin, at 6:00 pm. 3rd May 2012. STATION-Berlin
Luckenwalder Stra?e 4-6. 10963 Berlin
This panel is presented in cooperation with?Deutsche Welle.
Interview (in Bangla) by Debarati Guha
Questions for Abu Sufian?