Liberating the Liberator

They say photography liberated painting from the need to be representational, freeing it of the task to show things as they are. Less than two centuries from the birth of photography, we need to consider whether photography needs to be liberated from itself. What photography excels at, its phenomenal ability to record the visible, is perhaps its Achilles heel. Not for doing it badly, as many practitioners do it phenomenally well, but because of the weight that bears down upon its shoulders. The burden of trust, rather than the erosion of it, lies at the centre of the drama, for drama is what it is. If the world is a stage then the photographer is the scribe, the choreographer, and sometimes the script writer, but rarely the one directing the play.

Bird in stormy sky 1998

Ironically, it is the entity that is blamed for the demise of truthful photography, the digital sleight of hand, which is perhaps the true liberator. What photography did for painting, the computer has done for photography. Not by replacing it, but by removing the mask. Photography, like any other medium, is what its proponent makes it to be. Its fidelity makes it neither more honest nor more ethical. Those attributes continue to reside with the author, both the one with the camera and the other author, the one who sits at the editorial table. The photographer selects the frame, the editor selects the frame within which this inner frame exists. The selection of the image, the cropping, the juxtaposition with text or graphic or advert or headline, the sequencing, the timing and the hierarchy within the news pyramid, makes the photographic image the putty with which the truth is massaged. Its unintended veracity, the very tool, which others in the news-chain exploit with abandon. Continue reading “Liberating the Liberator”

Desperation

The selfie sessions have now become a part of my life. Ever since coming out of Keraniganj, and possibly more, after becoming Time Magazine’s Person of the Year 2018, I’m stopped in the streets, in shopping malls, bookstores, roadside cafes, at restaurants and weddings. The most recent spree was at the National Press Club on the 11th, where there was a public hearing of parliamentary candidates who were victims of election fraud. I have no idea who this guy is, but Blitz has again come up with a howler.

Posting on Blitz of selfie taken on 11th January 2018 by unknown person when I was at National Press Club on the 11th, January 2019, where there was a public hearing of parliamentary candidates who were victims of election fraud

They’re getting somewhat desperate in their smear campaign. Not having been able to come up with anything vaguely credible, they are now getting quite ridiculous. First I was a Mossad Agent. Then ISI. Then they tried the Hizbut Tahrir poster. Now I’m a Jamaati! I’d better be careful. I’ve been photographed with the President, and several cabinet ministers. They’ll accuse me of being an Awami Leaguer next. Now that would ruin anybody’s reputation!

 

সেনাবাহিনী বিষয়ে আমার বক্তব্য খন্ডিতভাবে প্রচার করে বিভ্রান্তির সুযোগ তৈরি করা হচ্ছে

সম্প্রতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক নির্বাচন পরিচালনা কমিটি নামক একটি ফেইসবুক পেইজ থেকে ২০১৩ সালে ডয়েচে ওয়েলেকে দেয়া আমার একটি সাক্ষাৎকার থেকে খন্ডিতভাবে এক টুকরো অংশ উদ্ধৄত করে একটি ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে সেখানে বলেছে:

“দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী ও জনগণকে মুখোমুখি করতে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল শহিদুল আলম। সেনাবাহিনীকে বিতর্কিত করতে আন্তর্জাতিক একটি মিডিয়াকে বেছে নিয়েছিলেন তিনি।”

২১ বছর আগে অপহৃত হিল উইমেন্স ফেডারেশেনের নেত্রী কল্পনা চাকমাকে নিয়ে আমি ২০১৩ সালে যেই প্রদশর্নী করেছিলাম তার উপর দেয়া ওই সাক্ষাৎকারের প্রায় পুরোটুকু ফেলে দিয়ে মাঝখান থেকে  খন্ডিতভাবে ছোট এক টুকরো অংশ কেটে নিয়ে তারা যেভাবে প্রচার করছে তার থেকে বিভ্রান্তির সুযোগ তৈরি হচ্ছে। উল্লেখ্য, কল্পনা চাকমার অপহরণের সাথে সেনা সদস্যর সংশ্লিষ্টতার যে অভিযোগ, যার উল্লেখ আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় নেতা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীরও ২০০৯ সালের একটি টিভি টক শোতে করেছিলেন, সেই অভিযোগের কোন বিচার এত বছর ধরে হয়নি। পাশাপাশি পার্বত্য অঞ্চলে যে জাতিগত নিপীড়ন চলমান তারও কোন সুরাহা দশকের পর দশক ধরে হয়নি। এরই প্রেক্ষাপটে বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সরকার ও সামরিক বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে সামগ্রিকতার আলোকে কিছু আলোচনা আমি ঐ সাক্ষাতকারে করি। পাশাপাশি আমার যে প্রদর্শনী কল্পনা চাকমার অপহরণ নিয়ে হয়েছিল সেই প্রদর্শনীরও নানা দিক আমি সেখানে তুলে ধরি। ফলে সেখানে আমাকে কল্পনা চাকমার অপহরণের উপর বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করার পর এক পর্যায়ে যখন প্রশ্ন করা হয় “তার মানে এটা কি বলা যায় যে কোন সরকারই আসলে সামরিক বাহিনীর বিষয়ে বিশেষ কোন কিছু, কোন উদ্যোগ গ্রহণে আগ্রহী নয়?” তখন এর উত্তরে আমি যা বলি তা ছিল নিম্নরূপ:

“আমাদের সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন আছে কিনা সেটাই আমি প্রথমে প্রশ্ন করি। তেতাল্লিশ বছর ধরে আমরা যে সামরিক বাহিনীকে লালন করছি তারা কিন্তু একবারও দেশ রক্ষার কাজে কোনভাবে নিয়োজিত হয়নি। সেটা ভালো। আমাদের শান্তি আছে সেটা ভাল। তবে বিশাল অঙ্ক কিন্তু এদের উপর ব্যয় করা হচ্ছে যেটা শিক্ষায় যেতে পারত, স্বাস্থ্যে যেতে পারত, অন্যান্য ধরনের উন্নয়নে যেতে পারত, সেটা হয়নি। এমনকি যে জায়গায় তাদের থেকে আমরা কিছু আশা করতে পারি আমাদের এই বর্ডারে যে বাঙালীদের পাখির মতো গুলি করা হচ্ছে, বিএসএফরা গুলি করছে সেখানে প্রতিবাদ করা, সেখানে তাদের অন্তত এই পরিস্থিতিতে বাঙালীদের, বাংলাদেশীদের বাঁচানো সেই কাজেও তারা কোন কিছু করেনি। তাদের একমাত্র কাজ শোষণ করা। এই শোষণ তো পাকিস্তানীরা আমাদের করেছে। আমাদের নিজেদের মিলিটারী আমাদের শোষণ করবে এটা আমরা হজম করব এটা হবে কেন? কিন্তু যে কথা আপনি বললেন, যখন যে সরকারই এসেছে এদেরকে তুষ্ট করাই ছিল তাদের প্রধান কাজ। এবং এটাও ভাবতে হবে যে আমাদের দেশের জাতির পিতাকে যারা হত্যা করেছে, জেনারেল জিয়াকে যারা হত্যা করেছে, আমাদের নেতাদের জেলে যারা হত্যা করেছে তারা কিন্তু এই দলেরই মানুষ।”

কিন্তু আমার উত্তর থেকে বিএসএফ এর সীমান্ত হত্যা ঠেকাতে না পারা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় নেতাদের হত্যা বিষয়ক  খুবই গুরুত্বপূর্ণ দুটি অংশ সম্পূর্ণরূপে বাদ দিয়ে  তারা যেভাবে খন্ডিত আকারে আমার বক্তব্যটি প্রচার করছে তা নিম্নরূপ:

“আমাদের সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন আছে কিনা সেটাই আমি প্রথমে প্রশ্ন করি। তেতাল্লিশ বছর ধরে আমরা যে সামরিক বাহিনীকে লালন করছি তারা কিন্তু একবারও দেশ রক্ষার কাজে কোনভাবে নিয়োজিত হয়নি। সেটা ভালো। আমাদের শান্তি আছে সেটা ভালো। তবে বিশাল অঙ্ক কিন্তু এদের উপর ব্যয় করা হচ্ছে যেটা শিক্ষায় যেতে পারত, স্বাস্থ্যে যেতে পারত, অন্যান্য ধরনের উন্নয়নে যেতে পারত, সেটা হয়নি। তাদের একমাত্র কাজ শোষণ করা। এই শোষণ তো পাকিস্তানিরা আমাদের করেছে। আমাদের নিজেদের মিলিটারি আমাদের শোষণ করবে এটা আমরা হজম করব এটা হবে কেন?”

এভাবে আমার প্রায় পুরো সাক্ষাতকারটাই বাদ দিয়ে মাঝখান থেকে একটি প্রশ্নকে বেছে নিয়ে তার উত্তরে আমি যা বলেছিলাম তারও গুরুত্বপূর্ণ দুইটি অংশ বাদ দিয়ে যেভাবে খন্ডিতভাবে আমার বক্তব্যকে উপস্থাপন করা হয়েছে তাতে বিভ্রান্তি তৈরি হতে পারে। আমার কাছে এটা বিস্ময়কর যে আওয়ামী লীগের একটি ফেসবুক পেইজ কি করে আমার উত্তর থেকে জাতির পিতা হত্যাকান্ডের মতো এতো গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশকে ছেঁটে ফেলল! আমি মনে করি সামগ্রিকতার আলোকে সামরিক বাহিনীসহ রাষ্ট্রের যেকোন প্রতিষ্ঠান নিয়েই গঠনমূলক সমালোচনা করা প্রতিটি নাগরিকের দায়িত্ব এবং জাতীয় স্বার্থেই সামরিক বাহিনী সহ প্রতিটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের উচিত এসব গঠনমূলক সমালোচনাকে নির্মোহভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করা, আমলে নেয়া। সেই রাস্তা বন্ধ করাই বরং সামরিক বাহিনীসহ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে জনগণের মুখোমুখি করার ষড়যন্ত্রের সামিল।

আমার সাক্ষাতকারের অডিও লিংক পাবেন এখানে। আগ্রহীরা শুনে মিলিয়ে দেখতে পারেন।

শহিদুল আলম

 

 

Doing the Bhangra Down India Gate

Where’s your bicycle? The Uber driver asked me jokingly. Yes, I had been known in photography circles and it is true that I did know a few Nobel Laureates. Given that I am a public speaker, and wear several hats, I do also come across the odd head of state, or celebrity. I’d be overstating it if I said they all knew me well. I have featured prominently in a film produced by Sharon Stone, but the long conversation on the phone, after my release, was very much an exception. But now that I have Uber drivers recognizing me, and people stopping me in the streets for selfies, I need to be careful I don’t trip over my own ego. Maybe I should be thanking the same person that everyone else thanks for everything that ever happens in Bangladesh.

I flatly deny making payments to the Bangladesh government for running a media campaign on my behalf. Neither is it true that I deliberately planted the inconsistencies in their fake news, making it appear they can’t tell a Kaffiey from a tablecloth. Let’s not get too technical. It started with me being a Mossad agent and taking money from Israel. Now I’ve been placed in the Al Qaeda farm, and definitely anti Israel. Considering that Israel is the one country that my government does not have diplomatic relationships with, and the only country my passport is not valid for, being anti Israel should theoretically make me a pal. My enemy’s enemy is my friend and all that.

Screen shot of Arundhati Roy and Shahidul Alam in Blitz taken on December 19
Continue reading “Doing the Bhangra Down India Gate”

Propaganda, and the suppression of dissent

rahnuma ahmed

I have not acquired any fortune but I have my paternal estate and the pension of a Subedar. This is enough for me. The people in my village seem to respect me, and are now fully satisfied with the ease and benefits they enjoy under British rule.

Thus wrote Sita Ram in From Sepoy to Subedar, first published in 1873, sixteen years after the first war of independence (the British still refer to it as the Indian Rebellion, or the Indian Mutiny).

Sita Ram wrote the manuscript at the bidding of his commanding officer Lieutenant-Colonel Norgate in 1861, his son passed it on to the Englishman; the manuscript is supposed to have been written in Awadhi, Norgate translated it into English. An Urdu translation is also heard to have surfaced the same year. Few copies are known to have been sold, until 1911 that is, when a Colonel Phillott created a new syllabus for Hindustani exams, taken by colonial officers to test their knowledge of the language. Phillott himself translated the book into Urdu, and from then onwards, the autobiography of Sita Ram, who worked in the Bengal Native Army of the East India Company for forty-eight years (1812 to 1860)—became a ‘key text’ for British officers. The book was still part of the curriculum in the 1940s, it was translated into Devanagari in the same decade; a new and illustrated edition of the book (Norgate’s English translation), was brought out by James Lunt, as late as 1970. Continue reading “Propaganda, and the suppression of dissent”

Not the Whole Truth

Two versions of Obama’s Iftar Party, one by the White House one by Press TV One would not imagine it was the same event. Please scroll down and read both versions before making your mind up. An account by an attendee

President Obama Hosts Iftar Dinner at the White House

President Barack Obama hosts an Iftar dinner celebrating Ramadan in the State Dining Room of the White House, July 14, 2014. (Official White House Photo by Amanda Lucidon)

Continue reading “Not the Whole Truth”

The day a Cockburn set the White House aflame

Sunday 2 September 2012

World View: Two hundred years after the US was humbled by Britain, our leaders still pass off defeat as victory
As a correspondent in Washington 20 years ago, I received occasional calls from local television stations on the anniversary of the burning of the White House by a British force in August 1814. The reason they wanted a comment was because the raid was jointly led by my distant ancestor, Admiral Sir George Cockburn, who took a fleet into Chesapeake Bay in the last months of the war that had started in 1812.
The intention was for Sir George and his fleet to seize horses in Virginia and Maryland for the cavalry. Instead, the sailors found it far more profitable to plunder tobacco warehouses on the creeks running down to the Chesapeake. Continue reading “The day a Cockburn set the White House aflame”

Al Jazeera and U.S. Foreign Policy: What WikiLeaks' U.S. Embassy Cables Reveal about U.S. Pressure and Propaganda

www.meghbarta.info

?The U.S. Embassy cables published by WikiLeaks present numerous very interesting stories about how Al Jazeera was brought to heel by the U.S. Government.? The U.S. Embassy in Doha, and officials from Washington, used a variety of direct and indirect methods of ensuring a greater degree of compliance on the part of Al Jazeera.? Elaborates?? Maximilian C. Forte .

Maximilian C. Forte
Associate professor in anthropology at Concordia University in Montreal, Canada.
His website 😕www.openanthropology.org


“Al Jazeera is a vital component to the USG’s strategy in communicating with the Arab world.” –?Joseph E. LeBaron, U.S. Ambassador to Qatar, November 6, 2008
“Al Jazeera Board Chairman Hamed bin Thamer Al Thani has proven open to creative uses of Al Jazeera’s airwaves by the USG beyond straightforward interviews.” —?Joseph E. LeBaron, U.S. Ambassador to Qatar, February 10, 2009 Continue reading “Al Jazeera and U.S. Foreign Policy: What WikiLeaks' U.S. Embassy Cables Reveal about U.S. Pressure and Propaganda”

A Robot Stole My Pulitzer!

How automated journalism and loss of reading privacy may hurt civil discourse.

By?|Posted Monday, March 19, 2012, at 7:11 AM ET

Automated journalism like that produced by Narrative Science could perhaps save media jobs, but it can also hurt civil discourse. William Gottlieb/Library of Congress

Can technology be autonomous? Does it lead a life of its own and operate independently of human guidance? From the French theologian?Jacques Ellulto the?Unabomber, this used to be widely accepted. Today, however, most historians and sociologists of technology?dismiss it?as naive and inaccurate. Continue reading “A Robot Stole My Pulitzer!”

9/11, growing disbelief at US government's account a decade later…

Subscribe to ShahidulNews

Share

By rahnuma ahmed

Today, September 11, 2011, is the tenth anniversary of the attacks on New York city’s Twin Towers, and the Pentagon.

Eleven days after the attack, president Bush, in his address to a joint session of the Congress had said, the attacks were carried out by al Qaeda, a “collection of loosely affiliated terrorist organizations” because they hate our freedoms. Freedom of religion, speech, vote, and assembling and disagreeing with each other. Briefly put, a hatred for the American way of life. They kill not only to end lives “but to disrupt and end a way of life.” “They stand against us because we stand in their way” (September 20, 2001).
But?and I hope this will give grounds for thought to readers and friends, who still cling to the idea that Osama bin Laden was responsible for the attacks, for the deaths of three thousand innocent civilians?the Bush administration had decided by 11am, September 11, 2001 that al-Qaeda was responsible for the attacks. Prior to conducting an indepth police investigation.
That same evening, at 9:30pm, a War Cabinet, with a select number of top intelligence and military advisors, was formed. That very night, at 11:00pm, a mere 12 hours after Bush administrators had declared al Qaeda to be responsible, the `War on Terror’ was officially launched (Michel Chossudovsky, The Truth Behind 9/11, Global Research, September 11, 2008).
Less than 4 weeks later, Afghanistan was bombed and invaded. The occupation, as we know, continues. And US troops, as recent press reports indicate, may stay in Afghanistan until 2024. Continue reading “9/11, growing disbelief at US government's account a decade later…”